ICT

ক্রায়োসার্জারি কি

প্রশ্নঃ ক্রায়োসার্জারি কি?

উত্তরঃ যে চিকিৎসা পদ্ধতিতে অতীব শীতল বরফ জমা তাপমাত্রায় মানব শরীরের কোনো অংশের রোগাক্রান্ত টিস্যুসমূহকে ধ্বংস করা হয়, তাকে ক্রায়োসার্জারি বলে।

ক্রায়োসার্জারির মধ্যমে সাধারণত যে ধরনের চিকিৎসা দেওয়া হয়

বর্তমানে ক্রায়োসার্জারি বিভিন্ন রোগের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। বিশেষ করে অসুস্থ ত্বকের পরিচর্যায় এটি বেশি উপযোগী। সাধারণত যেসব ক্ষেত্রে ক্রায়োসার্জারির ব্যবহার পরিলক্ষিত হয় তা হলো-

  1. সব ধরনের টিউমার অপসারনের জন্য এটি ব্যবহৃত হয়।
  2. এ পদ্ধতির সাহায্যে চোখের রেটিনার বিচ্যুতিরও চিকিৎসা করা যায়।
  3. ত্বকের ছোট টিউমার, তিল, আঁচিল, ত্বকের ছোট ছোট ক্যান্সার ইত্যাদিও ক্রায়োসার্জারির মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়া হয়।
  4. ক্রায়োসার্জারির মধ্যমে ক্যান্সার রোগের চিকিৎসা হয়ে থাকে। যেমন- লিভার ক্যান্সার, প্রোষ্টেট ক্যান্সার, ওরাল ক্যান্সার, ত্বকের ক্যান্সার ইত্যাদি। নিউরো রোগীদের কাছে ক্রায়োসার্জারি পদ্ধতিটি বেশ জনপ্রিয়। এদের কাছে এর গ্রহনযোগ্যতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কেননা এধরণের কোনো প্রকার কাঁটাছেড়ার প্রয়োজন নেই এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও নেই বললেই চলে৷

বিশেষ করে বয়স্ক রোগীদের প্রোস্টেট ক্যান্সার চিকিৎসায় ক্রায়োসার্জারি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, ক্রায়োসার্জারি পদ্ধতিতে চিকিৎসা গ্রহণের পর ৯৭ শতাংশ রোগী এক বছর এবং ৮২ শতাংশ রোগী ৫ বছর পর্যন্ত ক্যান্সার মুক্ত থাকে।

ক্রায়োসার্জারি চিকিৎসায় কি কি উপাদানসমূহ ব্যবহৃত হয়?

বিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে ক্রায়োসার্জারিতে ব্যাপকভাবে কার্বন-ডাই-অক্সাইড ব্যবহার শুরু হয়। পরবর্তীতে ক্রায়োসার্জারিতে নাইট্রোজেন ব্যবহার করেন। তরল নাইট্রোজেন স্প্রে করার জন্য ক্রায়োগান ব্যবহার করা হয়।

ক্রায়োসার্জারির ক্ষেত্রে সাধারণত পৃথক পৃথকভাবে তরল নাইট্রোজেন, আর্গন, কার্বন-ডাই-অক্সাইডের তুষার এবং সমন্বিত ডাই মিথাইল ইথার ও প্রোপেন-এর মিশ্রণ ব্যবহার করা হয়। এদের কোনো একটি -41°C তাপমাত্রার উদ্ভব ঘটায়। বর্তমানে তরল নাইট্রোজেনের পাশাপাশি নাইট্রাস অক্সাইড, ইথাইল ক্লোরাইড ইত্যাদি ক্রায়োসার্জারিতে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলে ক্রায়োসার্জারি চিকিৎসায় আরো উন্নতি সাধিত হচ্ছে।

ক্রায়োসার্জারি কি ?  সহজ ব্যাখ্যা…

ক্রায়োসার্জারি কি: বরফ শীতল তাপমাত্রাকে কাজে লাগিয়ে শরীরের রোগাক্রান্ত টিস্যুসমূহকে ধ্বংস করার প্রক্রিয়াকে ক্রায়োসার্জারি বলে।

বরফশীতল তাপমাত্রায় কোষ কলাকে ধ্বংস করার ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে অস্বাভাবিক কোষকে ধ্বংস করা হয়। এক্ষেত্রে অত্যন্ত শীতল তাপমাত্রায় কোষ কলার ভেতরে বল আকারের ছোট ছোট বরফের ক্রিস্টাল তৈরি হয় যা কোষ কলাকে ধ্বংস করে ফেলে।এ ধরনের চিকিৎসার জন্য সাধারণত ছোট কাঠির মত কিংবা সুঁইয়ের মতো লম্বা একটি যন্ত্রের ভেতর নাইট্রোজেন ও আর্গন গ্যাস সরবরাহ করে আক্রান্ত টিউমারে ক্রায়োসার্জারি করা হয়ে থাকে। এ যন্ত্রটিকে ক্রায়োপ্রোব বলা হয়।

প্রশ্নঃ ক্রায়োসার্জারির জনক কে?

উত্তরঃ  ইরভিং কুপার।

প্রশ্নঃ ক্রায়োপ্রোব কী?

উত্তরঃ ক্রায়োসার্জারি চিকিৎসায় ছোট সুঁইয়ের মত লম্বা একটি যন্ত্রের ভেতরে নাইট্রোজেন ও আর্গন গ্যাস সরবরাহ করে আক্রান্ত স্থানে ক্রায়োসার্জারি করা হয়ে থাকে। এ যন্ত্রটিকে ক্রায়োপ্রোব বলা হয়।

আরো পড়ুনঃ ভার্চুয়াল রিয়েলিটি কি?

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button